হিরোশিমা - আণবিক বোমা হামলার চিত্রকর্ম
মানুষের গল্প, জীবনের গল্প। নিজ শহরের গল্প অনুষ্ঠানে সারা জাপানের বিভিন্ন বিখ্যাত ব্যক্তিদের সম্বন্ধে জানানো হয়। জ্বলজ্বলে আগুনের লেলিহান শিখা ঘূর্ণির মত আকাশে উঠে গেছে। রাস্তায় একটি বেওয়ারিশ লাশ পড়ে রয়েছে। এ ধরনের পুড়ে যাওয়ার চিত্র ১৯৪৫ সালের ৬ই আগস্টের আণবিক বোমা হামলায় বেঁচে যাওয়া লোকজনের প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে অংকিত হয়েছে। প্রায় ১ দশকের বেশি সময় নিয়ে বেঁচে যাওয়া লোকজন বা “হিবাকুশা”রা তাদের স্মৃতিকে ক্যানভাসে ধরে রাখার জন্য স্থানীয় একটি হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের সাথে কাজ করছেন। এখন পর্যন্ত সম্পন্ন হওয়া ১৩৭টি “আণবিক বোমা হামলার চিত্রকর্ম” হচ্ছে এই আণবিক বোমা সংক্রান্ত শারীরিক ও মানসিক ক্ষতির এক মূল্যবান দৃশ্যমান রেকর্ড। এইসব চিত্রকর্ম কয়েকজন হিবাকুশা’কে সুগভীর মানসিক ক্ষতের মুখোমুখি হতে সাহায্য করেছে। এবং এগুলো হচ্ছে সেই দুর্ভাগ্যজনক দিনের সত্য কাহিনী পরবর্তী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য এক প্রবেশগম্য সম্পদ।
হিবাকুশারা তাদের আণবিক বোমা হামলার অভিজ্ঞতার স্মৃতিকে চিত্রকর্মের মাধ্যমে সংরক্ষণ করা হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের সাথে সংযুক্ত করেছেন।
শিক্ষার্থীদের জন্য হিবাকুশাদের স্মৃতির চিত্র অংকন তাদের অভিজ্ঞতাকে পুনরুজ্জীবিত করার এক প্রক্রিয়া হিসেবেও কাজ করছে।