সাকে মাস্টারি শুরু হয় চাল থেকে
প্রাচীনকাল থেকে, জাপানের সর্ববৃহৎ হ্রদ বিওয়া’র উত্তরের তীর বরাবর এলাকায় বিশুদ্ধ ভূগর্ভস্থ পানি এবং উচ্চ গুণগত মানের স্থানীয় চাল ব্যবহার করে খুব ভাল মানের সাকে তৈরি হয়ে আসছে। এই পর্বে একজন ইতালীয় এনরিকো কুপরি প্রায় ৪০০ বছর আগে প্রতিষ্ঠিত এক সময়ের বিখ্যাত সাকে প্রস্তুতকারক কোম্পানিতে চমৎকার সাকে তৈরিতে নিজেকে নিয়োজিত করেছেন।
এনরিকো কুপরি ৩ বছর আগে সাকে প্রস্তুতের জগতে এসেছেন। তিনি সাকে'কে “একটি পানীয় যা হৃদয় ও আত্মাকে ছুঁয়ে যায়” বলে বর্ণনা করেছেন।
এনরিকো চাল ধোয়ার প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন যা হচ্ছে সাকে তৈরির প্রথম ধাপ। চালকে ভালভাবে বোঝাটাই হচ্ছে সাকে তৈরির মূল বিষয়। চালের পানি শুষে নেয়ার সময় বাতাসের তাপমাত্রা বা ধানের জাত অনুযায়ী সমন্বয় করতে হয়।
এনরিকো চলতি বছরের নতুন সাকে প্রস্তুতে অংশ নিচ্ছেন। মুরো নামের ঘরে, ভাতের উপর কোজি ছত্রাক ছড়িয়ে দেয়া হয় এবং গাঁজানো হয়।