audio
প্রাকৃতিক দৃশ্যাবলী এবং এ সংক্রান্ত কাহিনী: ইয়ামাগুচি
জাপান ভ্রমণ
15মি. 29সে.

সম্প্রচার তারিখঃ: 24 সেপ্টেম্বর, 2020
শোনার মেয়াদঃ 8 অক্টোবর, 2021

জাপানের প্রধান দ্বীপ, হোনশু থেকে অনেক পশ্চিমে অবস্থিত ইয়ামাগুচি জেলা। সেখানে অসংখ্য প্রাকৃতিক দৃশ্য রয়েছে যেগুলো জাপানের অন্য অংশ থেকে একেবারেই আলাদা। এগুলোর মধ্যে রয়েছে জটিল বিন্দু বিন্দু জল নি:সৃত হয়ে গুহার ছাদ থেকে ঝুলন্ত চুনের দণ্ড এবং বিন্দু বিন্দু জল পড়ার ফলে গুহার তলদেশ থেকে ক্রমোন্নত চুনের দণ্ড সহ মাটির নিচের একটি গুহা ব্যবস্থা, পাথর ও প্লাস্টারের ঐতিহ্যবাহী দেয়াল নিয়ে গর্ব করা গ্রাম থাকা একটি ছোট দ্বীপ এবং আরও অনেক কিছু। আমেরিকার অভিনেতা চার্লস গ্লোভার এইসব চমৎকার বৈশিষ্ট্যপূর্ণ দৃশ্যাবলী দেখার জন্য ইয়ামাগুচি ভ্রমণ করেছেন এবং এর নেপথ্যে থাকা কাহিনী আবিষ্কার করার চেষ্টা করেছেন। (প্রতিবেদনটি প্রথম প্রচারিত হয় চলতি বছরের ১০ সেপ্টেম্বর।)

photo অভিনেতা চার্লস গ্লোভার photo “আকিইয়োশিদাই কুয়াসি-ন্যাশনাল পার্ক” খনির এই অভ্যন্তরীণ শহরে অবস্থিত। এই পার্ক জাপানের মধ্যে সর্ববৃহৎ এই ধরনের চুনা পাথরের দণ্ডের ক্ষেত্র। অদ্ভুদ আকারের চুনা পাথরের প্রস্তরের মধ্যে বেশ কয়েকটি হেঁটে বেড়ানোর কোর্স রয়েছে। photo “আকিইয়োশিদো” হচ্ছে আকিইয়োশিদাই’এর ১০০ মিটার নিচে অবস্থিত জাপানের সবচেয়ে বড় চুনা পাথরের গুহা। এটি কিছু চমৎকার প্রস্তরের গঠন যেমন “হিয়াকুমাইযারা” বা ১০০ ধাপের পুল, ট্রের মত “প্লেট”’এর জন্য বিখ্যাত। photo “ইওয়াইশিমা দ্বীপ” - এটি সেতো অভ্যন্তরীণ সাগরের একটি ছোট দ্বীপ যার পরিধি হচ্ছে মাত্র ১২ কিলোমিটার। বিশুদ্ধ সাদা প্লাস্টারের এক এক পরতের মধ্যে পাথরের স্তর দিয়ে তৈরি বৈশিষ্ট্যপূর্ণ দেয়ালের জন্য সুপরিচিত। এইসব দেয়াল স্থানীয় ভবনগুলোকে প্রচণ্ড বাতাস বিশেষ করে তাইফুনের সময়ের ঝোড়ো বাতাস থেকে রক্ষা করার জন্য নির্মাণ করা হয়।