12মি. 51সে.

খোদাই করা কাঠের তৈরি কোনরোনের গিগাকু মুখোশ (Gigaku Men Konron)

খ্যাতনামা জাপানি শিল্পকর্ম

সম্প্রচারের তারিখ 21 মে, 2015 পাওয়া যাবে 31 মার্চ, 2029 পর্যন্ত

গিগাকু হচ্ছে জাপানের সবচেয়ে পুরোনো মঞ্চ পরিবেশনা। ধারণা করা হয় যে এটি সপ্তম শতাব্দীতে চীনের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল থেকে জাপানে প্রবেশ করেছে। এই পরিবেশনায় কাঠের তৈরি গিগাকু মুখোশ ব্যবহার করা হত। বিভিন্ন ধরনের চরিত্রের মধ্য থেকে আমরা কোনরোন নামে পরিচিত একটি মুখোশের কথা তুলে ধরছি। টোকিও জাতীয় জাদুঘরের সংগ্রহে থাকা কোনরোন মুখোশ দেখতে যেন ভয়ংকর একটি দৈত্যের মুখের প্রতিচ্ছবি, যার রয়েছে বিস্তৃত খোলা চোখ এবং মুখের প্রান্তে আছে তীক্ষ্ণ দাঁত। তবে মানুষকে হাসানোর জন্য নাটকে এই ভূমিকাটি কমেডি ধাঁচের করে উপস্থাপন করা হত। মুখোশ ব্যবহারের সংস্কৃতি সারা বিশ্বেই দেখতে পাওয়া যায়, এবং বিশেষ করে এশিয়াতে এখনও এটি পরিচিত। তবে খুব অল্প সংখ্যক প্রাচীন মুখোশই বর্তমানে অবশিষ্ট আছে। সপ্তম শতাব্দীতে আগুনে পোড়ার পর হোওরিউজি মন্দির পুনর্নির্মাণ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এই গিগাকু মুখোশগুলো ব্যবহৃত হত। ধারণা করা হয় যে এই মুখোশগুলো বর্তমান বিশ্বে এখনও টিকে থাকা কাঠের মুখোশের মধ্যে সবচেয়ে পুরোনো। গিগাকুর উৎপত্তির বিষয়টি রহস্যে ঘেরা তবে এগুলো যে বহু দূর দেশের সাথে একটি সম্পর্ক তৈরি করে দিয়েছে তা আমরা অনুধাবন করতে পারি।

photo

অনুষ্ঠানের রূপরেখা