জাহাজ চলাচলের ক্ষেত্রে নিট-শূন্য নিঃসরণের জন্য বিভিন্ন দেশের আহ্বান

আন্তর্জাতিক সমুদ্র সংস্থা বা আইএমও’র একটি প্যানেল ২০৫০ সালের মধ্যে আন্তর্জাতিক জাহাজ চলাচলের ক্ষেত্রে নিট-শূন্য গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ অর্জনের জন্য একটি প্রস্তাব খতিয়ে দেখছে।

সোমবার থেকে শুরু হওয়া জাতিসংঘের ঐ সংস্থার একটি কমিটি বৈঠকে পরিকল্পনাটি নিয়ে আলোচনা চলছে।

বৈশ্বিক জাহাজ চলাচল নিঃসরণ ২০৫০ সালের মধ্যে নিট-শূন্য’তে নামিয়ে আনার এই প্রস্তাবটি সম্মিলিতভাবে উত্থাপন করে জাপান, যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য বিভিন্ন দেশ।

এটি আইএমও’র ২০০৮ সালের পর্যায় থেকে নিঃসরণ ২০৫০ সালের মধ্যে অর্ধেকে নামিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রা থেকে আরও বেশি উচ্চাকাঙ্খী।

তবে, এটা এখন দেখার বিষয় যে সদস্য দেশগুলো ৫ দিনের এই বৈঠক চলাকালীন একটি মতৈক্যে পৌঁছাতে পারে কিনা। উন্নয়নশীল দেশগুলো ব্যয় এবং প্রযুক্তিগত কিছু চ্যালেঞ্জের কথা উল্লেখ করে এই প্রস্তাবিত লক্ষ্যের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হতে নারাজ।

এদিকে, জাপানের জাহাজ চলাচল শিল্পে কার্বন ডাই অক্সাইড নিঃসরণের পরিমাণ কমানোর প্রচেষ্টা চলমান রয়েছে।

জাপানি সামুদ্রিক মালামাল পরিবহণ কোম্পানি নিপ্পোন ইউসেন অন্তর্ভুক্ত থাকা একটি গ্রুপ একটি শূন্য-নিঃসরণ জাহাজের উন্নয়ন করেছে যেটি অ্যামোনিয়া, জৈব-জ্বালানি এবং অন্যান্য জ্বালানির এক মিশ্রণ দিয়ে চলবে।

এই পরিকল্পনার অধীনে, এই জাহাজটি মালামাল হিসেবে অ্যামোনিয়া বহন করার পাশাপাশি তা জ্বালানি হিসেবেও ব্যবহার করবে। এই গ্রুপটির লক্ষ্য হচ্ছে ২০২৬ অর্থবছরের মধ্যে এই জাহাজটিকে বাণিজ্যিকভাবে বাজারে আনা।