জাতিসংঘ মিয়ানমারের অবনতিশীল পরিস্থিতির ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছে

জাতিসংঘের ত্রাণ প্রধান সতর্ক করেছেন যে, মিয়ানমারে সংঘর্ষ ঘনীভূত হচ্ছে এবং এই সহিংসতার অবসান না হলে আরও বেশি সংখ্যক লোকের জন্য মানবিক সাহায্যের প্রয়োজন হবে।

জাতিসংঘের মানবিক বিষয়ক সহকারী মহাসচিব এবং জরুরি ত্রাণ সমন্বয়ক মার্টিন গ্রিফিথস সোমবার এক বিবৃতিতে বলেন, মিয়ানমারের পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। তিনি এও বলেন, ক্রমবর্ধমান সংঘর্ষের কারণে ৩০ লক্ষেরও বেশি লোকের জন্য জীবন-রক্ষাকারী মানবিক সাহায্যের প্রয়োজন।

গ্রিফিথস আরও বলেন, “সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে, সেদেশের উত্তর-পশ্চিম দিকের পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক হয়ে পড়েছে”। তিনি ব্যাখ্যা করে বলেন, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী এবং সশস্ত্র বেসামরিক গ্রুপ বা সশস্ত্র সংখ্যালঘু জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে শত্রুতা বেড়ে চলেছে।

গ্রিফিথস বলেন, “নারী এবং শিশু’সহ ৩৭ হাজারেরও বেশি লোক নতুন করে বাস্তুচ্যূত হয়েছেন” এবং গীর্জা ও একটি মানবিক সংস্থার কয়েকটি দপ্তর’সহ ১৬০ টিরও বেশি বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

গ্রিফিথস এও বলেন যে, বেসামরিক লোকজন এবং বেসামরিক অবকাঠামোর উপর হামলা অবিলম্বে অবশ্যই বন্ধ হওয়া উচিত।

তিনি মিয়ানমারের লোকজনকে সাহায্য করার পদক্ষেপে অর্থায়নের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান।