জাপানের এক সরকারি প্যানেলের নতুন কোভিড-১৯ সংক্রমণ পরিমাপকের অনুমোদন

জাপান সরকারের করোনাভাইরাস মোকাবেলা বিষয়ক একটি প্যানেল চিকিৎসা পরিষেবার উপরের চাপের মাত্রার উপর বেশি গুরুত্ব দিয়ে সংক্রমণ পরিস্থিতি মূল্যায়নের জন্য একটি নতুন পাঁচ স্তরের স্কেল বা পরিমাপকের অনুমোদন দিয়েছে।

আজ সোমবার এক বৈঠকে প্যানেল এর অনুমোদন দেয়।

জাপানি কর্মকর্তারা একটি চার-মাত্রার পরিমাপকের ভিত্তিতে করোনাভাইরাস রোধী পদক্ষেপ যাচাই করে দেখে আসছেন। তবে প্যানেলটি বলছে, টিকাদান কর্মসূচির অগ্রগতির পাশাপাশি কোভিড-১৯ এর চিকিৎসা সংক্রান্ত ওষুধের উন্নয়নের কারণে দেশের পরিস্থিতি পালটে যাচ্ছে।

নতুন পরিকল্পনার অধীনে প্রতিটি জেলার পরিস্থিতি শূন্য থেকে চার মাত্রার একটি পরিমাপকের ভিত্তিতে বিশ্লেষণ করা হবে। এর সর্বনিম্ন স্তরের মানে হচ্ছে নতুন সংক্রমণের সংখ্যা শূন্য হিসেবে ধরে নেয়া।

আর চার স্তরের সর্বোচ্চ ধাপের মানে হচ্ছে নিয়মিত চিকিৎসা পরিষেবার উপর মারাত্মক বিধিনিষেধ থাকা সত্ত্বেও ভাইরাসে সংক্রমিত রোগীদের আহ্বানে সাড়া দিতে না পারা।

এই পরিকল্পনায় প্রতিটি স্তর বা পর্যায়ে কী ধরনের ব্যবস্থা নিতে হবে, সেটির উল্লেখ করা আছে।

প্যানেলের ভাষ্যানুযায়ী, জেলাগুলোর উচিত হবে তাদের অঞ্চলের পরিস্থিতি প্রথম স্তরের মধ্যে রাখা। এর মানে হচ্ছে লোকজন ঐ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া সত্ত্বেও স্থিতিশীলভাবে তাদের চিকিৎসা পরিষেবা দেয়া যাবে।

প্যানেলের প্রধান ওমি শিগেরু সাংবাদিকদের বলেন যে কর্মকর্তারা সংক্রমণ পরিস্থিতির উপর ঘনিষ্ঠ নজর রাখলেও চিকিৎসা পরিষেবার উপর চাপের ক্ষেত্রে অধিক গুরুত্ব দিবেন।

ওমি এক্ষেত্রে দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে পরিস্থিতি কী হতে পারে, সেটির পূর্বাভাস দেয়ার পাশাপাশি দেরি না করে দ্রুততর সময়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করার উপর গুরুত্ব দিয়েছেন।