করোনাভাইরাসের উপসর্গ প্রতিরোধ করতে জাপান অ্যান্টিবডি ককটেল ব্যবহার করবে

জাপানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় রোগীর পরিবার ও অন্যান্যদের মধ্যে কোভিড-১৯’এর উপসর্গ প্রতিরোধ করতে তথাকথিত অ্যান্টিবডি ককটেল বা অ্যান্টিবডি মিশ্রণের ব্যবহার বাড়াবে।

জুলাই মাসে মন্ত্রণালয় হাল্কা থেকে মাঝারি ধরনের উপসর্গ যা গুরুতর আকার ধারন করতে পারে, তেমন উপসর্গ থাকা রোগীদের জন্য ইন্ট্রাভেনাস অর্থাৎ শিরার মধ্যে দিয়ে প্রয়োগ করার অ্যান্টিবডি ককটেল ব্যবহারে অনুমোদন দেয়। এই ককটেলে দু রকম অ্যান্টিবডির মিশ্রণ রয়েছে।

জাপানে এই ওষুধের সরবরাহকারী চুগাই ফার্মাসিউটিক্যাল, এই অ্যান্টিবডির ব্যবহার উপসর্গ প্রতিরোধের কাজেও প্রসারিত করার অনুমতি পেতে আবেদন জানায়।

কোম্পানিটি বিদেশে এই ওষুধের ক্লিনিকাল ট্রায়াল অর্থাৎ মানব দেহে পরীক্ষার ফলাফলের উল্লেখ করে। এই ফলাফলে দেখা যাচ্ছে পরিবারের সংক্রমিত সদস্যদের সাথে ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শে থাকা লোকেদের মধ্যে উপসর্গ থাকা করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি শতকরা ৮১ ভাগ হ্রাস পেয়েছে।

পরিবারের সংক্রমিত সদস্যদের ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শে থাকা লোকজন এবং উপসর্গবিহীন রোগীদের ক্ষেত্রে অ্যান্টিবডি ককটেল ব্যবহারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নীতি একটি বিশেষজ্ঞ প্যানেল বৃহস্পতিবার অনুমোদন করে। তবে প্যানেল এও বলে যে নীতিগতভাবে এর ব্যবহার কেবল তাদের মধ্যেই সীমিত রাখা আবশ্যক, যাদের অবস্থা সংক্রমিত হলে গুরুতর হয়ে উঠতে পারে।