জাপানে কোভিড রোগীর ফুসফুস প্রতিস্থাপনে জীবন্ত দাতাদের দেয়া ফুসফুস ব্যবহার

কিওতো বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল বলছে করোনাভাইরাসের কারণে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ফুসফুস প্রতিস্থাপনের অস্ত্রোপচার বিশ্বে প্রথমবারের মত জীবন্ত দাতাদের দেয়া ফুসফুস ব্যবহার করে সম্পন্ন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের থোরাসিক সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক দাতে হিরোশি বৃহস্পতিবার বিভাগের অন্য সদস্যদের সাথে মিলে এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।

হাসপাতাল বলছে কানসাই অঞ্চলে বসবাসকারী মহিলার দেহে বুধবার ১১ ঘণ্টার কাছাকাছি সময় ধরে অস্ত্রোপচার চালানো হয়।

হাসপাতাল জানায় যে গত বছর করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার পর মারাত্মক ধরনের নিউমোনিয়ায় তিনি আক্রান্ত হন। হৃৎপিণ্ড ও ফুসফুসের বদলে কাজ করা ইসিএমও যন্ত্র ব্যবহার করে তার চিকিৎসা করা হয় এবং শেষ পর্যন্ত ভাইরাসের পরীক্ষায় নেগেটিভ ফলাফল পাওয়া যায়।

তবে ফাইব্রোসিস জটিলতা দেখা দেয়ায় ফুসফুসের অধিকাংশ কার্যক্ষমতা তিনি হারিয়ে ফেলেন এবং আরোগ্য লাভের কোন সম্ভাবনা তার ছিল না।

মহিলার স্বামী এবং পুত্র দাতা হওয়ার জন্য এগিয়ে এলে শল্য চিকিৎসকরা ফুসফুসের সেই অংশ এদেরটা ব্যবহার করে প্রতিস্থাপন করে নেন।

হাসপাতাল বলছে মহিলাকে এখন নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। চিকিৎসকরা বলছেন রোগীর আরোগ্য লাভ অব্যাহত থাকলে তিন মাসের মধ্যে তিনি সম্ভবত সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠবেন। তারা বলছেন স্বামী এবং পুত্রও ভাল আছেন।

হাসপাতাল বলছে সেই মহিলা হচ্ছেন বিশ্বের প্রথম সাবেক কোভিড-১৯ রোগী, প্রতিস্থাপনের জন্য জীবন্ত দাতাদের ফুসফুস যিনি পেয়েছেন। অধ্যাপক দাতে বলেছেন করোনাভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার পর মারাত্মক পরবর্তী প্রতিক্রিয়ায় ভুগতে থাকা লোকজনের জন্য ফুসফুস প্রতিস্থাপন সম্ভাবনাময় একটি বিকল্প চিকিৎসা হয়ে উঠবে।