নিজেদের অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব অগ্রাহ্য করে হামলা অব্যাহত রেখেছে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী

একটি অস্ত্রবিরতির আহ্বান জানানো সত্ত্বেও, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী অভ্যুত্থান বিরোধী বিক্ষোভকারীদের সমর্থন দেয়া জাতিগত সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর সশস্ত্র বাহিনীসমূহের বিরুদ্ধে বিমান হামলা পরিচালনা করেছে।

উল্লেখ্য, সামরিক বাহিনী গত বৃহস্পতিবার থেকে আরম্ভ হওয়া এক মাসের একটি অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব দিলেও শুক্রবার দেশের দক্ষিণ-পূর্বের কারেন রাজ্যে বিমান হামলা চালায়।

এছাড়া, সামরিক বাহিনী স্থল সেনাও নিয়োগ করেছে। কারেন জাতিগত সংখ্যালঘু সশস্ত্র গোষ্ঠীটি পাল্টা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

প্রায় ২০ হাজার অধিবাসী নিরাপদ স্থানে সরে গেছেন। তাদের মধ্যে কেউ কেউ থাইল্যান্ডের সাথে থাকা সীমান্তের দিকে পালিয়ে যাচ্ছেন।

স্থানীয় একটি মানবাধিকার গ্রুপ বলছে, সামরিক অভ্যুত্থানটির পর থেকে চালানো দমনাভিযানে ৫শ ৫০ ব্যক্তি প্রাণ হারিয়েছেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রচারিত এক বিবৃতিতে, সামরিক বাহিনী মিয়ানমার বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূতের বিরুদ্ধে পাল্টা বক্তব্য তুলে ধরে। উল্লেখ্য, জাতিসংঘ দূত গত বুধবার বলেছিলেন যে দেশটিতে “একটি রক্তগঙ্গা আসন্ন।”