আন্তর্জাতিক সহযোগিতার আহ্বান জানাচ্ছে মিয়ানমারের এক সংখ্যালঘু গোষ্ঠি

মিয়ানমারের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ভিতর ভিন্নমতাবলম্বী একটি গ্রুপ সামরিক বিমান হামলার থেকে পালানোর চেষ্টা করছে এমন লোকজনকে সাহায্য করার জন্য আন্তর্জাতিক সহযোগিতার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

কারেন ন্যাশনাল ইউনিয়ন নামক ঐ গ্রুপটি মঙ্গলবার এক বিবৃতি প্রচার করে যেখানে স্থানীয় বাসিন্দাদের জন্য মানবিক সহযোগিতা প্রদানের আহ্বান জানানো হয়েছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এবং বিশেষ করে থাইল্যান্ডের প্রতি। গ্রুপটি জানায় যে মিয়ানমারের সামরিক স্থল বাহিনী তাদের এলাকার দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

সামরিক অভ্যুত্থানের প্রতিবাদ করা লোকজনের দমন পীড়ন অব্যাহত রেখেছে মিয়ানমারের সেনা এবং সেই কারণেই এই আবেদন জানানো হচ্ছে। স্থানীয় এক মানবাধিকার সংস্থা জানায় যে দক্ষিণাঞ্চলের তনিন্থারি অঞ্চল সহ অন্যত্র এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনী গুলি বর্ষণ শুরু করলে মঙ্গলবার আট ব্যক্তি নিহত হন।

দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ কারেনে প্রতিবাদকারীদের পক্ষ নিয়ে থাকা সশস্ত্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠির বিরুদ্ধে বিমান হামলা চালায় সামরিক বাহিনী। বহু লোক সীমানা অতিক্রম করে থাইল্যাণ্ডে পালিয়ে যান।

এদিকে, রাষ্ট্র পরিচালিত টেলিভিশন জানায় যে সামরিক নেতা সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং বলেছেন যে এক সামরিক চৌকি লক্ষ্য করে সংখ্যালঘু সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠির জঙ্গি বাহিনী চালানো হামলার বিরুদ্ধে তার সেনাবাহিনী লড়াই অব্যাহত রাখবে।

ক্রমবর্ধমান এই উত্তেজনার ভিতরে থাই পররাষ্ট্র মন্ত্রী ডন পোরামাতওয়াইনাই বলেন যে মিয়ানমারের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতে দক্ষিণপূর্ব এশীয় দেশ সমূহের জোট আসিয়ানের নেতারা দ্রুত হলে এপ্রিল মাসেই এক শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজন করবে। অগ্রগতি অর্জনের কোন পন্থা তারা খুঁজে বের করতে পারেন কিনা সে দিকেই এখন মনোযোগ আকৃষ্ট হচ্ছে।