সুয়েজ খালের বন্ধ থাকা পরিস্থিতি সমাপ্তির লক্ষণ নেই

মিশরের কর্তৃপক্ষগুলো, সুয়েজ খালে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারী আটকে পড়া জাহাজটি সরিয়ে নেয়ার কাজ চলমান থাকলেও কবে নাগাদ খালটি চলাচলের জন্য পুনরায় খুলে দেয়া হবে, সেবিষয়ে কিছু বলা থেকে বিরত রয়েছে।

সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষ গতকাল, চারদিন আগে খালটিতে একটি জাহাজ আটকে পড়ার পর প্রথমবারের মত একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

পশ্চিম জাপানের এহিমে জেলার শোয়েই কিসেন নামের কোম্পানির মালিকানাধীন বিশালাকারের জাহাজটি তাইওয়ানের একটি কোম্পানি পরিচালনা করছে।

সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষ, কর্মীরা নিম্ন জোয়ারের সময় মাটি খনন করে এবং উচ্চ জোয়ারের সময় টাগবোট ব্যবহার করে টেনে জাহাজটিকে পুনরায় পানিতে ভাসানোর চেষ্টা করছে বলে জানায়।

খাল কর্তৃপক্ষের প্রধান ওসামা রাবিয়ে, কাজের তৃতীয় দিনে ইতিবাচক ফলাফল অর্জিত হয়েছে বলে জানান।

তবে তিনি, ঠিক কবে নাগাদ এই কাজ শেষ হবে, সেবিষয়ে স্পষ্টভাবে কিছুই বলেননি।

রাবিয়ে, শুধুমাত্র শক্তিশালী বাতাসই জাহাজটি আটকে পড়ার একমাত্র কারণ নয় বলে উল্লেখ করলেও কারিগরি ও মানব ত্রুটির বিষয় উড়িয়ে দেননি। তিনি, আরও তদন্তের মাধ্যমে দূর্ঘটনার কারণ জানা যাবে বলে উল্লেখ করেন।

কর্তৃপক্ষগুলো, বর্তমানে খালটি অতিক্রম করতে খালের ভেতরে ও চারপাশে ৩২১টি জাহাজ অপেক্ষমান রয়েছে বলে জানায়। এরফলে, পণ্য সামগ্রী সরবরাহের উপর গুরুতর নেতিবাচক প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা নিয়ে আশঙ্কা বৃদ্ধি পাচ্ছে।