অভ্যুত্থানের পক্ষে সাফাই গেয়েছেন মিয়ানমারের সামরিক জান্তা

মিয়ানমারের সামরিক জান্তা সরকারের প্রধান, বেসামরিক লোকজনের প্রতিবাদ সমাবেশ অব্যাহত থাকার মাঝে গতমাসে তাঁর সংঘটিত অভ্যুত্থানের ন্যায্যতার বিষয় জোর দিয়ে উল্লেখ করেছেন।

জেষ্ঠ্য জেনারেল মিন অং হ্লাইং, আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবসে ১৯৪৫ সালে জাপানের রাজকীয় সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো আরম্ভ হওয়া উপলক্ষে রাজধানী নেপিদোতে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেন।

তিনি, গত বছর অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে বেআইনি কর্মকাণ্ড ঘটার কারণে সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখল করতে বাধ্য হয় বলে উল্লেখ করেন। এতে তিনি নিজের এমন দাবির উপর জোর দেন যে সামরিক বাহিনী দেশের সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিত করবে।

সামরিক বাহিনী, বার্ষিক এই অনুষ্ঠানে সাধারণত ৩০টি দেশের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন বলে জানায়। তবে এবছরের অনুষ্ঠানে চীন ও রাশিয়াসহ মাত্র আটটি দেশ অংশগ্রহণ করেছে। জাপান অনুপস্থিত ছিল।

মিন অং হ্লাইং, রাশিয়াকে “প্রকৃত বন্ধু” হিসেবে বর্ণনা করে মিয়ানমারকে সহায়তা প্রদানের জন্য রুশ প্রতিনিধির কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এদিকে, সামরিক বাহিনী প্রতিবাদকারীদের দমন তৎপরতা জোরদার করে চলেছে।

স্থানীয় একটি মানবাধিকার সংস্থা, ১লা ফেব্রুয়ারির অভ্যুত্থানের পর থেকে গতকাল পর্যন্ত ৩২৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে বলে জানায়।