যুক্তরাষ্ট্র এবং তাইওয়ানের মধ্যে উপকূলরক্ষী চুক্তি স্বাক্ষর

যুক্তরাষ্ট্র ও তাইওয়ান, দৃশ্যত চীনের দিকে নজর রেখে দু’দেশের উপকূলরক্ষী বাহিনীর মধ্যকার পারস্পরিক সহযোগিতা জোরদার করতে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

গতকাল রাজধানী তাইপেতে জেষ্ঠ্য কর্মকর্তারা, একদিন আগে ওয়াশিংটনে দ্বিপক্ষীয় সমযোতা স্মারক স্বাক্ষর উদযাপন উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এখন দুই পক্ষ, নীতিটি সমন্বয় করতে উপকূলরক্ষী বাহিনীর কর্মকর্তা পর্যায়ের একটি গ্রুপ গঠন করবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। তারা, অনুসন্ধান এবং উদ্ধার অভিযানের পাশাপাশি আইন লঙ্ঘনকারী মাছ ধরার জাহাজগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারস্পরিক সহযোগিতা করবে।

কর্মকর্তারা, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দায়িত্বভার গ্রহণের পর দু’পক্ষের মধ্যে এটিই প্রথম আনুষ্ঠানিক চুক্তি বলে জোর দিয়ে উল্লেখ করেন। উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও তাইওয়ানের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই।

কর্মকর্তারা, সরাসরি চীনের নামোল্লেখ না করলেও চীন সম্প্রতি উপকূল রক্ষী বাহিনীকে অস্ত্র ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করে একটি নতুন আইন প্রণয়ন করেছে।

তবে তাইওয়ানের প্রধানমন্ত্রী সু সেং চাং, নতুন আইনটিকে এক্ষেত্রে একটি বিষয় হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি, নতুন আইনটি এই অঞ্চলকে বিস্মিত করেছে উল্লেখ করে শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষার্থে একই মূল্যবোধ পোষণকারী দেশগুলোর একসাথে কাজ করার প্রয়োজন রয়েছে বলে মন্তব্য করেন।