বৃহস্পতিবারের নিক্ষেপ ছিল নতুন ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা: উত্তর কোরিয়া

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম বৃহস্পতিবারের দু’টি ক্ষেপণাস্ত্রের নিক্ষেপ নিশ্চিত করেছে এবং জানিয়েছে, এগুলো হচ্ছে “নতুন করে উন্নয়ন করা নতুন ধরনের কৌশলগতভাবে নিয়ন্ত্রিত নিক্ষিপ্ত বস্তু”।

রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, উন্নত এই অস্ত্র ব্যবস্থা আড়াই টন ওজনের একটি যুদ্ধাস্ত্র বহন করতে পারে। তারা এও জানায়, এই অস্ত্র নির্ভুলভাবে কোরীয় উপদ্বীপের পূর্বের ৬০০ কিলোমিটার দূরের পানির মধ্যকার লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানে।

এই হিসাব জাপানের অনুমানের সাথে মেলেনি। জাপান জানাচ্ছে এইসব নিক্ষিপ্ত বস্ত প্রায় সাড়ে ৪০০ কিলোমিটার পর্যন্ত উড়ে যায়।

রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম একজন ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে জানায়, সাম্প্রতিক এই নিক্ষেপ উত্তর কোরিয়ার সামরিক ক্ষমতাকে শক্তিশালী করবে এবং কোরীয় উপদ্বীপে দেশটির জন্য বিদ্যমান হুমকির প্রতিরোধ করবে। এটা এখনও স্পষ্ট নয় যে, নিক্ষেপের সময়ে উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন সেখানে উপস্থিত ছিলেন কি না।

প্রায় এক বছরের মধ্যে এবারই প্রথম উত্তর কোরিয়া একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করল। মাত্র কয়েক দিন আগেই দেশটির দু’টি স্বল্প-পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের খবর পাওয়া গিয়েছিল।