উইগুরদের লক্ষ্য হিসাবে স্থির করা হ্যাকারদের প্রতিরোধ করেছে ফেসবুক

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক নেত্রীস্থানীয় সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক জানিয়েছে যে বিদেশে বসবাসকারী উইগুর সম্প্রদায়ের লোকজনের উপর নজর রাখতে তাদের প্রযুক্তি ব্যবহারকারী চীনের হ্যাকারদের একটি গ্রুপকে তারা শনাক্ত করতে পেরেছে এবং এদের একাউন্ট ফেসবুক থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে।

বুধবার ফেসবুক জানায় যে তুরস্ক এবং যুক্তরাষ্ট্রের মত দেশগুলোতে বসবাসকারী উইগুরের আন্দোলনকারী, সাংবাদিক এবং ভিন্ন মতাবলম্বী ব্যক্তিদের লক্ষ্য হিসাবে নির্ধারণ করেছিল হ্যাকারদের ঐ গ্রুপটি।

কোম্পানি আরো জানায় যে ঐ হ্যাকাররা শিক্ষার্থী বা সাংবাদিকের ভান করে ফেসবুকে মিথ্যা একাউন্ট তৈরি করে। লক্ষ্য হিসাবে নির্ধারিত ব্যক্তিরা যাতে ক্ষতিকর লিংকে ক্লিক করে তাদেরকে সেই প্রতারণার ফাঁদে ফেলার জন্য হ্যাকাররা ঐ নকল একাউন্ট তৈরি করেছিল। লিংকে ক্লিক করলে সেগুলো তাদের ইলেকট্রনিক যন্ত্রগুলোকে ক্ষতিকর সফটওয়্যারে সংক্রমিত করবে যার মাধ্যমে নজরদারী প্রক্রিয়া চালাতে সক্ষম হবে হ্যাকাররা। ফেসবুক জানায় প্রায় ৫০০ জন ব্যক্তির কাছে তাদের ব্যবহৃত যন্ত্র বিপদগ্রস্ত হয়ে থাকতে পারে বলে তারা বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছে।

কোম্পানি আরো জানায় যে হ্যাকিং কর্মকাণ্ড দেখে বোঝা যাচ্ছে যে এটি সম্পদে সমৃদ্ধ, অটল অধ্যবসায়ের সাথে এটি চালানো হচ্ছে এবং একই সাথে কে এর পিছনে জড়িত তা অন্ধকারে রাখা হয়েছে।

শিনজিয়াং উইগুর স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলে উইগুরের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে চীনের বিরুদ্ধে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলো চীনা কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করছে। তবে চীন এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।