মিয়ানমারের জাতিসংঘ দূত কঠোর নিষেধাজ্ঞার আহ্বান জানিয়েছেন

জাতিসংঘে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত তার দেশের সামরিক বাহিনীর উপর নিষেধাজ্ঞা কঠোর করে নেয়া এবং দেশটির উপর তাদের শাসনকে স্বীকৃতি না দেয়ার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

কিয়াও মো তুন এনএইচকে’কে একটি সাক্ষাতকার দিয়েছেন। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে সামরিক বাহিনীর সমালোচনা করার পর তারা তাকে বরখাস্ত করেছে বলে জানা গেলেও তিনি দেশটির জাতিসংঘ দূত হিসেবে রয়ে গেছেন। উচ্চ পর্যায়ের ষড়যন্ত্রের জন্য অভিযুক্ত হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

কিয়াও মো তুন বলেন, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সর্বাত্মক পদক্ষেপ নেয়া উচিত। তিনি আরও বলেন, সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা হতে হবে “সমন্বিত, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যযুক্ত এবং কঠোর।”

এদিকে, মিয়ানমারের রাষ্ট্র-পরিচালিত টেলিভিশন সামরিক নেতা সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং’এর একটি বক্তৃতার উদ্ধৃতি তুলে ধরেছে, যেখানে তিনি বলেছেন যে দেশকে অবশ্যই বিদেশি হুমকি থেকে রক্ষা করতে হবে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, আগামী শনিবার পরিকল্পিত একটি সামরিক স্মারক অনুষ্ঠানের আগে অভ্যুত্থান বিরোধী বিক্ষোভকারীদের উপর মারাত্মক দমনাভিযান চালানো হতে পারে।

রবিবার মধ্যাঞ্চলীয় শহর মোনিওয়া এবং অন্যত্র বিক্ষোভকারীরা দমনাভিযানের মুখোমুখি হন। স্থানীয় গণমাধ্যম দু’ব্যক্তির মৃত্যুর খবর জানিয়েছে।