জাপান সম্ভবত করোনাভাইরাস রোধী কেন্দ্রীভূত পদক্ষেপ ব্যবহার করবে

জাপান সরকার রবিবার জরুরি অবস্থা শেষ হওয়ার পরে সংক্রমণ আবারও বৃদ্ধির লক্ষণ শনাক্ত করতে পারলে হয়তো নতুন করে প্রবর্তন করা করোনাভাইরাস রোধী কাঠামো ব্যবহার করার কথা বিবেচনা করবে।

এই কাঠামো হচ্ছে বিশেষ ভাইরাস রোধী পদক্ষেপ সংক্রান্ত এক সংশোধিত আইনের অংশ। এই কাঠামোর মাধ্যমে জেলা কর্তৃপক্ষগুলো এমনকি জরুরি অবস্থা বলবৎ না থাকলেও সংক্রমণ রোধী কেন্দ্রীভূত পদক্ষেপসমূহ হাতে নিতে পারবে।

এছাড়াও, সরকার ৫টি ভাইরাস রোধী কর্মসূচি এগিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করছে। এর মধ্যে খাবার খাওয়ার মত স্থাপনায় সংক্রমণ রোধ, ভাইরাসের বিভিন্ন ধরন নিয়ে পর্যবেক্ষণ জোরদার করা এবং সংক্রমণ আবার বেড়ে যাওয়ার লক্ষণ সংক্রান্ত কৌশলগত পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানো অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

সরকার সাময়িকভাবে এখানকার বাসিন্দা নন এমন বিদেশি নাগরিকদের জাপানে প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা বলবৎ রাখার ইচ্ছাও প্রকাশ করে।

সরকার বৃহস্পতিবার টোকিও এবং এর আশপাশের ৩টি জেলা সাইতামা, কানাগাওয়া এবং চিবা’র উপর থেকে রবিবার বর্ধিত জরুরি অবস্থা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই জরুরি অবস্থা টোকিও এলাকায় প্রায় আড়াই মাস ধরে জারি রয়েছে।