বিতর্কিত জলসীমায় প্রবাল প্রাচীরের উপর প্রভাব নিয়ে চীন, ফিলিপাইনের মধ্যে মতভেদ

চীন জানিয়েছে, পঁচিশ বছর আগে ফিলিপাইনের একটি যুদ্ধজাহাজ নিকটবর্তী এলাকায় ইচ্ছাকৃতভাবে নোঙ্গর করায় দক্ষিণ চীন সাগরের একটি উপহ্রদে প্রবাল প্রাচীর প্রতিবেশ ব্যবস্থা গুরুতরভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

দ্বিতীয় থমাস শোল স্প্র্যাটলি দ্বীপপুঞ্জের অংশ। চীন, ফিলিপাইন এবং অন্যান্যদের মধ্যে এর মালিকানার দাবি নিয়ে বিতর্ক রয়েছে।

সোমবার, চীনের প্রাকৃতিক সম্পদ মন্ত্রণালয় এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত এই উপহ্রদে প্রবাল প্রাচীরের প্রতিবেশ ব্যবস্থার ক্ষতি সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

১৯৯৯ সালে ম্যানিলা ইচ্ছাকৃতভাবে উপহ্রদের উত্তরে সামরিক জাহাজটিকে নোঙ্গর করেছিল। ফিলিপাইনের সৈন্যদেরকে সেখানে মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয় যে জাহাজের ৪০০ মিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে প্রবাল প্রাচীরের আয়তন ২০১১ সাল থেকে ৮৭ শতাংশের বেশি হ্রাস পেয়েছে। এতে বলা হয়, জরিপ করা অন্যান্য এলাকার তুলনায় এই হ্রাসের হার অনেক বেশি।

এতে আরও বলা হয় যে জাহাজের কাঠামোর ক্ষয়জনিত ক্ষতি, পাশাপাশি জাহাজে অবস্থান করা কর্মীদের গার্হস্থ্য বর্জ্য এবং পয়ঃনিষ্কাশনের কারণে এর আশপাশে পানির গুণমানে আরও অবনতি হয়েছে।

প্রতিবেদনে পরিত্যক্ত মাছ ধরার জাল এবং আবর্জনার ছবিও রয়েছে, যা দৃশ্যত ফিলিপাইনের বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে, ফিলিপাইন বলছে যে দক্ষিণ চীন সাগরের অন্যান্য অংশে চীন একটি পুনরুদ্ধার প্রকল্প নিয়ে এগিয়ে চলেছে এবং সেইসব এলাকার প্রবাল প্রাচীরের উপর এর সম্ভাব্য পরিবেশগত প্রভাব সম্বন্ধে ম্যানিলা খতিয়ে দেখছে।