চীনের উপ-প্রধানমন্ত্রী ছুরির ঘটনা সত্ত্বেও জাপানের সাথে ভালো বাণিজ্য সম্পর্কের প্রত্যাশী

চীনের উপ-প্রধানমন্ত্রী হে লাইফং, জাপানের নিম্ন কক্ষের একজন প্রাক্তন স্পিকারের সাথে একটি বৈঠকে জোর দিয়ে বলেছেন যে জাপানি নাগরিকদের উপর এক চীনা ব্যক্তির সাম্প্রতিক হামলার কারণে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্ক প্রভাবিত হওয়া উচিত নয়। উপ-প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন জাপানি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে আরও বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

উপ-প্রধানমন্ত্রী হে সোমবার বেইজিংয়ে সাবেক নিম্নকক্ষের স্পিকার কোনো ইয়োহেইয়ের নেতৃ্ত্বাধীন ৮৭ সদস্যবিশিষ্ট এক জাপানি প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানান। প্রতিনিধিরা ছিলেন জাপানের অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য প্রমোশন অফ ইন্টারন্যাশনাল ট্রেডের।

অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তাদের মতে, একজন চীনা নারীর জন্য কোনো তার সমবেদনা প্রকাশ করেন, যিনি ২৪শে জুন জিয়াংসু প্রদেশের সুচৌ শহরে একজন জাপানি মা এবং তার সন্তানকে ছুরি দিয়ে হামলা করা ব্যক্তির হাত থেকে রক্ষা করার চেষ্টা করার পরে মারা যান। এই চীনা নারী ছিলেন একটি জাপানি স্কুল বাসের একজন পরিচারক।

আক্রমণের লক্ষ্যবস্তু জাপানি নাগরিকরা ছিলেন কিনা, তা শনাক্ত করার জন্য চীনা পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কোনো।

উপ-প্রধানমন্ত্রীর ভাষ্যমতে, তাকে চীনা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন যে হামলাটি একটি "বিচ্ছিন্ন ঘটনা" ছিল। এর কারণে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্কের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া রোধ করার প্রয়োজনীয়তার ওপর তিনি জোর দেন।

বেইজিংয়ের প্রতি তাদের সংশোধিত পাল্টা গুপ্তচরবৃত্তির আইন কীভাবে প্রয়োগ করা হচ্ছে, সে সম্পর্কে স্পষ্ট ব্যাখ্যা প্রদান এবং জাপানি নাগরিকদের জন্য একটি স্বল্পমেয়াদী ভিসা মওকুফ কার্যক্রম পুনরায় চালুকরণের আহ্বানও জানান কোনো ।

তবে উপ-প্রধানমন্ত্রী এই অনুরোধগুলোর সাপেক্ষে কোনো সুনির্দিষ্ট উত্তর দেননি।