ইউক্রেনে সামরিক প্রশিক্ষক পাঠাতে পারে ফ্রান্স

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেছেন, ইউক্রেনের বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্য সামরিক প্রশিক্ষক যারা পাঠাবে, সেইসব দেশের একটি জোট গঠন তিনি "চূড়ান্ত" করে নিতে চাইছেন। শুক্রবার প্যারিসে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সাথে একটি বৈঠকের আয়োজন তিনি করেন এবং তিনি বলেন যে ইউক্রেনের জানানো অনুরোধের জবাবে সেরকম প্রশিক্ষক পাঠানোর অর্থ রাশিয়ার সাথে সংঘাতের "সম্প্রসারণ" নয়।

এই পরিকল্পনা নিয়ে কিছু মিত্র দেশের সতর্কতার মুখে ম্যাক্রোঁকে পড়তে হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানির নেতারা উদ্বিগ্ন যে ইউক্রেনের অভ্যন্তরে পশ্চিমা সামরিক ব্যক্তিত্বের উপস্থিতি সংঘাত আর বাড়িয়ে দিতে পারে।

রাশিয়ার নেতারা বলছেন, প্রশিক্ষকদের পাঠানো হলে হামলার "বৈধ লক্ষ্যবস্তুতে" তারা পরিণত হবেন।

ম্যাক্রোঁ এবং জেলেনস্কি তাদের আলোচনার পরে একটি সংবাদ সম্মেলন করেন এবং ম্যাক্রোঁ সেখানে সাংবাদিকদের বলেছেন যে, ইউক্রেনের মাটিতে সৈন্যদের প্রশিক্ষণ প্রদান আরও বেশি "কার্যকর ও বাস্তব" বিবেচিত হবে। জেলেনস্কি এতে সম্মত হয়ে বলেন যে, ন্যাটোর অনেক দেশ ইতিমধ্যে তাদের ভূখণ্ডে ইউক্রেনীয় বাহিনীকে প্রশিক্ষণ প্রদান করলেও যে "পার্থক্য" এখানে হবে তা হল, ইউক্রেনে প্রশিক্ষণ দেয়া হলে সময় "সংক্ষিপ্ত" করে নেয়ার সুযোগ থাকবে।

ম্যাক্রোঁ মিরাজ ২০০০ জঙ্গি বিমান সরবরাহের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন, যদিও সংখ্যার উল্লেখ তিনি করেননি।

জেলেনস্কি ফরাসি সামরিক শিল্পের নির্বাহীদের সাথেও দেখা করেছেন, ইউক্রেনে নিজেদের গ্রুপের একটি অধীনস্থ কোম্পানি তৈরি করে নিতে যারা সম্মত হয়েছেন। সেইসব কোম্পানি ইতিমধ্যে যুদ্ধে ব্যবহৃত হওয়া হাউইটজার ও অন্যান্য সমরাস্ত্র তৈরি করছে।