জাক্সাকে গ্রহাণুর নমুনা দেবে নাসা

নাসা তার জাপানি প্রতিপক্ষকে গত বছর একটি গ্রহাণু থেকে সংগৃহীত নমুনা সরবরাহ করবে। জাপান মহাকাশ অনুসন্ধান এজেন্সি বা জাক্সা আশা প্রকাশ করেছে যে, ২০১৯ সালে একটি গ্রহাণু থেকে তাদের অনুসন্ধান যানের সংগ্রহ করা নমুনাগুলির তুলনা করা হলে নতুন বৈজ্ঞানিক ফলাফলের দিকে তা নিয়ে যাবে।

ওসিরিস-রেক্স মিশন, বা নাসার গ্রহাণুর নমুনা ফেরত প্রকল্প, সফলভাবে একটি ক্যাপসুল বিতরণ করেছে যা গত বছরের সেপ্টেম্বরে গ্রহাণু বেন্নু থেকে বালি এবং অন্যান্য নমুনা পুনরুদ্ধার করেছিল। উল্লেখ্য, বেন্নু গ্রহাণুটি পৃথিবী এবং মঙ্গল গ্রহের কক্ষপথের মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত।

ক্যাপসুল পৃথিবীতে ফিরে আসার এক বছরের মধ্যে জাক্সাকে তার কিছু নমুনা সরবরাহ করার জন্য নাসা আগে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল।

এজেন্সি কীভাবে নমুনাগুলি বিশ্লেষণ করার পরিকল্পনা করছে, জাক্সার গবেষকরা বুধবার সে বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করেন।

তারা ব্যাখ্যা করে জানান যে নাসা দ্রুত হলে এই গ্রীষ্মে মোট নমুনার ওজনের প্রায় ০.৬ গ্রাম জাক্সাকে সরবরাহ করবে।

তারা বলেছেন যে বিভিন্ন যন্ত্র সহ পরিষ্কার একটি ঘর তারা নতুন ভাবে তৈরি করে নিয়েছেন, জলের পরিমাণ এবং জৈব পদার্থের ধ্বংসাত্মক নয় এমন অংশের পরিমাণ মাপা ও বিশ্লেষণ করে দেখার সুযোগ যেটা করে দেবে।

জাক্সার হায়াবুসা ২ অনুসন্ধানী যান ২০২০ সালে রিউগু গ্রহাণু থেকে নমুনা পৃথিবীতে নিয়ে আসে।

জাক্সার অ্যাস্ট্রোমেটেরিয়াল সায়েন্স রিসার্চ গ্রুপের বিশেষভাবে নিযুক্ত অধ্যাপক তাচিবানা শোগো বলেছেন, দুটি গ্রহাণুর নমুনায় উভয় ক্ষেত্রেই জল এবং জৈব পদার্থ থাকলেও তাদের মধ্যে পার্থক্যও রয়েছে।

তিনি আরও বলেন যে, "একের সাথে এক যোগ করলে তার ফলাফল দুইয়ের বেশি হবে" এই বিশ্বাস নিয়ে নমুনাগুলি বিশ্লেষণ করার অপেক্ষায় রয়েছেন তিনি।