জাপানি প্রকৌশলীদের বিশ্বের প্রথম কাঠের কৃত্রিম উপগ্রহ নির্মাণ

জাপানের প্রকৌশলীরা বিশ্বের প্রথম কাঠের কৃত্রিম উপগ্রহ নির্মাণ করেছেন। মহাকাশে কাঠ ব্যবহার করা যেতে পারে বলে প্রমাণ করার আশায় রয়েছেন তারা।

কিয়োতো বিশ্ববিদ্যালয় এবং আবাসন নির্মাতা সুমিতোমো ফরেস্ট্রি যৌথভাবে এই কৃত্রিম উপগ্রহ তৈরি করেছে, যা হলো একটি ১০ কিউবিক সেন্টিমিটার অনুসন্ধানকারী যান যার ছয়টি দিকে কাঠের প্যানেল রয়েছে।

এটি বিকৃতি এবং অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা পরিমাপ করার যন্ত্র দিয়ে সজ্জিত।

বেশিরভাগ কৃত্রিম উপগ্রহ বায়ুমণ্ডলে পুনঃপ্রবেশের সময় যাতে পুড়ে যায়, সেই ভাবে নকশা করা হয়ে থাকে।

কিন্তু ধাতু দিয়ে তৈরি প্রচলিত কৃত্রিম উপগ্রহগুলি পুনরায় প্রবেশের সময় কণা তৈরি করতে পারে যা আবহাওয়া এবং টেলিযোগাযোগের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। কাঠ ব্যবহার করে এই প্রভাবগুলো হ্রাস করা যেতে পারে।

কাঠের কৃত্রিম উপগ্রহটি সেপ্টেম্বরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে উৎক্ষেপণের জন্য নির্ধারিত একটি রকেটের সাথে সংযোজন করা হবে এবং সেটি আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখান থেকে তথ্য সংগ্রহের জন্য উপগ্রহটিকে মহাকাশে ছেড়ে দেওয়া হবে।

মহাকাশচারী এবং কিয়োতো বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েট স্কুলের অধ্যাপক দোই তাকাও বলেছেন, মহাকাশে কাঠ যে একটি টেকসই উপাদান, তা প্রমাণ করার আশা তারা করছেন। যত বেশি উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করা হবে তাদের প্রভাবও সেই রকম হবে, যা উপেক্ষা করা যায় না বলে তিনি জানান।