কীট-বাহিত সংক্রমণের চিকিৎসার জন্য ফ্লু-প্রতিরোধ ওষুধ অনুমোদন করেছে জাপানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্যানেল

জাপানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি বিশেষজ্ঞ প্যানেল, থ্রম্বোসাইটোপেনিয়া সিন্ড্রোম বা এসএফটিএস'সহ মারাত্মক ধরণের জ্বর নামে পরিচিত কীট-বাহিত এক ধরণের ভাইরাস সংক্রমণের চিকিৎসায় ইনফ্লুয়েঞ্জা প্রতিরোধের ওষুধ আভিগানের সম্প্রসারিত ব্যবহার অনুমোদন করেছে।

মন্ত্রণালয় আনুষ্ঠানিকভাবে ওষুধটি ব্যবহারের অনুমোদন দিলে, এটা হবে এসএফটিএসের জন্য বিশ্বের প্রথম চিকিৎসাবিদ্যা সংক্রান্ত ওষুধ।

এসএফটিএস-এর রোগীদের বেশিরভাগই কীটের কামড়ের মধ্যে দিয়ে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে থাকে। উপসর্গের মধ্যে জ্বর ও ডায়রিয়া অন্তর্ভুক্ত থাকলেও বর্তমানে এর কোনো কার্যকর ওষুধ পাওয়া যায় না।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে যে, জাপানে এসএফটিএসে সংক্রমিত হওয়ার ঘটনার ৩০ শতাংশ পর্যন্ত হচ্ছে প্রাণঘাতী।

ফুজিফিল্ম তোয়ামা কেমিক্যাল আভিগান উদ্ভাবন করেছে। গত বছর আগষ্ট মাসে কোম্পানি এর কার্যকারিতা সংক্রান্ত উপাত্ত সংগ্রহ করা গেছে উল্লেখ করে, এসএফটিএসের বিরুদ্ধে ওষুধ ব্যবহারের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন চেয়েছিল।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্যানেল শুক্রবার নিশ্চিত করে যে, ওষুধটি কার্যকর এবং এটা যে নিরাপদ তা নিয়ে গুরুতর কোন উদ্বেগ নেই।

আভিগান প্রাথমিকভাবে ২০১৪ সালে জাপানে একটি অ্যান্টি-ফ্লু ড্রাগ হিসাবে অনুমোদিত হয়েছিল এবং সরকার এটা মজুদ রেখেছিল।

পশুর উপর চালানো পরীক্ষায় ভ্রুণের বিকৃতি এটা ঘটাতে পারে বলে দেখা যাওয়ায় সন্তান-সম্ভবা মহিলা বা গর্ভবর্তী মায়েদের বেলায় ওষুধটি ব্যবহার করা যাবে না।