জাপানের গবেষকরা বলছেন তাদের উদ্ভাবিত রক্ত ​​পরীক্ষা প্রাথমিক পর্যায়ের আলঝেইমার সনাক্ত করতে সক্ষম

জাপানের গবেষকরা বলছেন যে মানব দেহে লক্ষণ দেখা দেয়ার আগে আলঝেইমারের কারণ হিসাবে চিহ্নিত একটি প্রোটিন সনাক্ত করার জন্য উচ্চ মাত্রার সঠিক একটি রক্ত ​​​​পরীক্ষা তারা উদ্ভাবন করেছেন।

টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ইওয়াৎসুবো তাকেশি এবং অন্যরা আন্তর্জাতিক একটি চিকিৎসা সামিয়িকীতে তাদের গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করেছেন।

এরকম জানা যায় যে এমিলয়েড বিটা নামে পরিচিত এক ধরনের অস্বাভাবিক প্রোটিন রোগের উপসর্গ দেখা দেয়ার অনেক আগেই আলঝেইমার রোগীদের মস্তিষ্কে জমা হয়।

মস্তিষ্কের ছবি ধারণ করা ইমেজিং পরীক্ষা অন্তর্ভুক্ত থাকা প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে বর্তমানে আলঝেইমার রোগের উপস্থিতি চিহ্নিত করা হয়।

বিজ্ঞানীরা আলঝেইমারের কোনো লক্ষণ নেই জাপানের সেরকম ৪৭৪ ব্যক্তির কাছ থেকে নেয়া রক্তের একটি বিশদ বিশ্লেষণ পরিচালনা করেছেন এবং সেইসব ফলাফল মস্তিষ্কের ছবির রোগ নির্ণয় ফলাফলের সাথে তুলনা করে দেখেছেন।

বিজ্ঞানীরা বলছেন যে দুটি প্রোটিনের উঁচু মাত্রার নির্ভুল রক্ত পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে তারা মস্তিষ্কে জমা হওয়া এমিলয়েডের অবস্থা সম্পর্কে আগে থেকে জানতে সক্ষম হয়েছেন। সেই দুই প্রোটিন হচ্ছে - এমিলয়েড বিটা এবং টাউ ফসফোরাইলেটেড অ্যাট থ্রোনাইন ২১৭ বা পি-টাউ২১৭।

তারা বলছেন ব্যক্তির বয়সের মত অন্যান্য তথ্য যোগ করে, রক্ত ​​পরীক্ষায় এমিলয়েড জমা হওয়ার পূর্বাভাস দেওয়ার ক্ষেত্রে ৯০ শতাংশের বেশি নির্ভুলতার হার লক্ষ্য করা গেছে।