জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ফিলিস্তিনের সদস্যপদ লাভের প্রচেষ্টা পুনরুজ্জীবিত

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ, জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য হওয়ার জন্য ফিলিস্তিনিদের দাবিকে সমর্থন করে একটি প্রস্তাব বিপুল সমর্থন নিয়ে অনুমোদন করেছে। এতে, নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি বিষয়টি "ইতিবাচকভাবে" পুনর্বিবেচনা করার সুপারিশ করা হয়েছে।

১৪৩টি ভোটের সমর্থন নিয়ে গতকাল শুক্রবার প্রস্তাবটি গৃহীত হয় এবং যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলসহ নয়টি দেশ বিপক্ষে ভোট দিয়েছে। পঁচিশটি দেশ ভোটদানে বিরত ছিল।

প্রস্তাবটি পাস হওয়ার সময় অধিবেশন কক্ষটি করতালিতে ভরে যায় এবং প্রতিনিধিরা জাতিসংঘে নিয়োজিত ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রদূত রিয়াদ মনসুরের সাথে আলিঙ্গন করতে সারিবদ্ধ হয়ে অপেক্ষা করছিলেন।

ফিলিস্তিন বর্তমানে সদস্য-বহির্ভূত পর্যবেক্ষকের মর্যাদা ভোগ করছে। প্রস্তাবটি ফিলিস্তিনকে পূর্নাঙ্গ সদস্যপদ পাওয়ার যোগ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিচ্ছে।

উল্লেখ্য, জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্যপদ পেতে নিরাপত্তা পরিষদের সুপারিশ প্রয়োজন হয়। তবে, মার্কিন প্রতিনিধি দল গত মাসে এমন একটি প্রস্তাবের বিরুদ্ধে ভেটো দেয়।

গতকাল শুক্রবার প্রস্তাবটির বিরুদ্ধে ভোট দেয়ার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন উপ-রাষ্ট্রদূত রবার্ট উড বলেন যে, "আমাদের ভোট ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা প্রতিফলিত করে না; আমরা খুব স্পষ্টভাবে বলেছি যে আমরা এটিকে সমর্থন করি এবং এটিকে অর্থপূর্ণভাবে এগিয়ে নিতে চাই৷ পরিবর্তে, এটি একটি এমন স্বীকৃতি যে, রাষ্ট্র কেবলমাত্র এমন একটি প্রক্রিয়া থেকে আসবে যাতে সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর মধ্যে সরাসরি আলোচনা জড়িত থাকে।"

ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরায়েল কাটজ এই প্রস্তাবের সমালোচনা করেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি, জাতিসংঘ একটি বিকৃত এবং সংযোগ বিচ্ছিন্ন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে উল্লেখ করেন।