নিহত জাপানি চিকিৎসকের নেতৃত্বে শুরু হওয়া সেচ ব্যবস্থার কাজ সম্পন্ন আফগানিস্তানে

আফগানিস্তানে একটি বেসরকারি সংস্থার সহায়তায় একটি নতুন সেচ খালের নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। উল্লেখ্য, এনজিও'টি প্রয়াত জাপানি চিকিৎসক নাকামুরা তেৎসুর নেতৃত্বে শুরু হওয়া কিছু প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

বহু বছর ধরে আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তা দেওয়ার পর সেদেশে ২০১৯ সালে নাকামুরাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। কে বা কারা কী কারণে তাকে হত্যা করেছে, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

আফগানিস্তানে নাকামুরার প্রতিনিধিত্ব করা জাপানি এনজিও 'পেশাওয়ার-কাই' দেশটিতে নিজেদের কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।

গত শনিবার পূর্বাঞ্চলীয় নানগারহার প্রদেশে তালিবান কর্মকর্তা ও স্থানীয় বাসিন্দাদের উপস্থিতিতে এউপলক্ষে একটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। উল্লেখ্য, খালটির নির্মাণ কাজ শেষ করতে প্রায় দেড় বছর সময় লেগেছে।

ভারপ্রাপ্ত জ্বালানি ও পানিমন্ত্রী আবদুল লতিফ মনসুর বলেন, জাপানি এনজিওর সদস্যরা দূর থেকে পানি সরবরাহ করার পর তা সংরক্ষণের এক অবিশ্বাস্য কাজ সম্পন্ন করেছেন। তিনি আফগানিস্তানের জনগণকে ভুলে না গিয়ে তাদের ব্যথা অনুভব করার পাশাপাশি তাদের সাহায্য করার জন্য সংস্থাটিকে ধন্যবাদ জানান।

নতুন খালটি প্রায় ১৪ হাজার স্থানীয় বাসিন্দার জীবনযাত্রার পাশাপাশি কৃষিকাজের উন্নতিতেও সাহায্য করবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

পেশাওয়ার-কাই'য়ের ফুজিতা চিয়োকো বলেন, আফগানিস্তানে খরা পরিস্থিতির ক্রমাবনতি ঘটছে। তার ভাষ্যমতে, অনেক লোকজন যাতে নাকামুরার প্রতিষ্ঠিত সেচ পদ্ধতিটি আয়ত্ত্ব করার পাশাপাশি অত্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোয় তা প্রয়োগ করতে পারে, সেকাজে সহায়তা করার জন্য কার্যক্রম চালিয়ে যাবে তার গ্রুপ।