বিদ্যুৎকেন্দ্র ও তেল শোধনাগারে রাশিয়া ও ইউক্রেনের পাল্টাপাল্টি হামলা

ইউক্রেনের জ্বালানি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে, রুশ সামরিক বাহিনী শুক্রবার দিনের শেষভাগ থেকে শনিবার ভোর পর্যন্ত পূর্ব ইউক্রেনের দনিপ্রোপেত্রোভস্ক অঞ্চল'সহ অন্যান্য এলাকায় জ্বালানি স্থাপনাগুলোতে হামলা চালালে চারটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

এদিকে, ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীও রাশিয়ার তেল শোধনাগারে হামলা চালিয়েছে।

রাশিয়ার বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স জানিয়েছে যে, ইউক্রেনীয় ড্রোন হামলার পর দেশটির ক্রাসনোদর অঞ্চলে একটি তেল শোধনাগারের কার্যক্রম আংশিকভাবে স্থগিত করা হয়।

ইউক্রেনের একটি গণমাধ্যম একটি গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে যে, দেশটির নিরাপত্তা সংস্থা এই হামলা চালায়।

এদিকে, রাশিয়া ইউক্রেনে তাদের সামরিক আক্রমণ চালিয়ে যাওয়াকালীন রাশিয়ার স্বাধীন সংবাদমাধ্যম ভার্স্তকা গত বৃহস্পতিবার জানায় যে, ইউক্রেনের যুদ্ধ থেকে ফিরে আসা সেনারা অনেক সহিংস অপরাধে জড়িয়েছেন।

তাদের ভাষ্যমতে, সংবাদ প্রতিবেদন থেকে প্রাপ্ত উন্মুক্ত তথ্য এবং বিচারের রেকর্ড হিসেব করে দেখা গেছে যে, গত দুই বছরে মোট ৫৫ টি হত্যা মামলা হয়েছে, যাতে মোট ৭৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর মূলত যুদ্ধফেরত সাবেক সেনারাই তা ঘটিয়েছেন।

উল্লেখ্য, একটি বেসরকারি সামরিক কোম্পানি, ওয়াগনার গ্রুপ, ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে লড়াই করার জন্য কারাবন্দীদের নিয়োগ দিয়েছিল এই বলে যে ছয় মাস যুদ্ধে অংশগ্রহণ করলে তাদের ক্ষমা করে দেয়া হবে।

প্রতিবেদনে এও বলা হয়েছে যে, হত্যাকাণ্ডের শিকার হওয়াদের মধ্যে ৪৪ জন, পূর্বে কারাবন্দী হিসেবে থাকা এরকম ক্ষমাপ্রাপ্ত সেনাদের হাতেই খুন হয়েছেন।