ব্যাংক অব জাপানের সিদ্ধান্তের পর দুর্বল ইয়েন নিয়ে উদ্বিগ্ন জাপানের ব্যবসায়ী নেতারা

শুক্রবার ডলারের বিপরীতে ইয়েনের মূল্য আরও কমে যাওয়ার পর জাপানের ব্যবসায়ী নেতারা একটি সমন্বয় ব্যবস্থা ঠিক করে নেয়ার আহ্বান দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতি জানানো জোরদার করে নিয়েছেন। ব্যাংক অব জাপান বা বিওজে, মুদ্রানীতি অপরিবর্তিত রাখার সিদ্ধান্তের পরে এই পতন ঘটে।

মার্চ মাসে স্বল্পমেয়াদী সুদের হার শূন্য থেকে ০.১ শতাংশের মাত্রায় বৃদ্ধি করে নেয়ার সময় বিওজে তাদের নির্ধারিত নীতি বজায় রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। ব্যাংক বলছে সেই লক্ষ্যমাত্রা তারা বজায় রাখবে।

বিওজের গভর্নর উয়েদা কাযুও শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন যে, দুর্বল ইয়েন জাপানের মৌলিক মুদ্রাস্ফীতির হারে বড় প্রভাব ফেলেনি।

তিনি এমন দৃষ্টিভঙ্গি পুনর্ব্যক্ত করেন যে, বিওজে আপাতত সহজ মুদ্রানীতি অব্যাহত রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে।

উয়েদা আরও বলেন যে সামগ্রিক মূল্যের উপর দুর্বল ইয়েনের প্রভাব যদি এমন একটি মাত্রায় পৌঁছে যায় যা উপেক্ষা করা যায় না, সেরকম অবস্থায় মুদ্রা নীতির বেলায় সিদ্ধান্ত গ্রহণে সেটা বিবেচনা করে দেখা হবে কিংবা সম্ভাব্য একটি ভিত্তি হিসাবে ব্যবহার করা হবে।

তবে তার এই মন্তব্যকে ইয়েনের অবমূল্যায়ন নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য শক্তিশালী একটি বার্তা হিসাবে গ্রহণ করা হয়নি এবং বিনিয়োগকারীদের তা মুদ্রা বিক্রি করে দিতে প্ররোচিত করেছে।

ইয়েনের ৩৪ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমে যাওয়া অব্যাহত থাকায় সরকার এবং বিওজে'র বাজারে সম্ভাব্য হস্তক্ষেপের দিকে ব্যাবসায়ীরা ঘনিষ্ঠ নজর রাখছেন।