বৈশ্বিক সামরিক ব্যয় সর্বকালের সর্বোচ্চ: সুইডেনের গবেষণা সংস্থা

সুইডেনের একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে যে ২০২৩ সালে বৈশ্বিক সামরিক ব্যয় টানা নবম বছরের মতো বেড়েছে, যা ১৯৮৮ সালে সংস্থাটি রেকর্ড রাখা শুরুর পর থেকে সর্বকালের সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে।

স্টকহোম আন্তর্জাতিক শান্তি গবেষণা ইনস্টিটিউট সোমবার প্রকাশিত তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে উল্লেখ করে যে গতবছর সারা বিশ্বে সামরিক ব্যয় ছিল মোট ২.৪৪৩ ট্রিলিয়ন ডলার। এই সংখ্যা এর আগের বছরের তুলনায় ৬.৮ শতাংশ বেশি।

যুক্তরাষ্ট্র ৯১৬ বিলিয়ন ডলার নিয়ে ব্যয়কারীদের তালিকার শীর্ষে রয়েছে, যা এর আগের বছরের তুলনায় ২.৩ শতাংশ বেশি। চীন আনুমানিক ২৯৬ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করে দ্বিতীয় স্থানে ছিল, যা ৬ শতাংশ বেশি। এর পরের অবস্থানে ছিল রাশিয়া, যারা নিজেদের সামরিক ব্যয় ২৪ শতাংশ বাড়িয়ে আনুমানিক ১০৯ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করে।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে ইউরোপ, এশিয়া ও ওশেনিয়ার পাশাপাশি মধ্যপ্রাচ্যেও সামরিক ব্যয় উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে।

অন্যদিকে, ইউক্রেন ছিল এক্ষেত্রে অষ্টম স্থানে, যাদের সামরিক ব্যয় ৫১ শতাংশ বেড়ে ৬৪.৮ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে।

এছাড়া, গাজা উপত্যকায় যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ায়, ইসরায়েলের সামরিক ব্যয় ২৪ শতাংশ বেড়ে ২৭.৫ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছায়।

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয় যে জাপান এবং তাইওয়ান তাদের নিজ নিজ প্রতিরক্ষা ব্যয় ১১ শতাংশ বাড়িয়েছে। প্রতিবেদনে এও তুলে ধরা হয় যে দেশগুলো চীনের ক্রমবর্ধমান হুমকির মুখোমুখি হচ্ছে বলে আগামী বছরগুলোতে এই প্রবণতা আরও ত্বরান্বিত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গবেষণা ইনস্টিটিউটটির ভাষ্যানুযায়ী, "সামরিক ব্যয়ের এই অভূতপূর্ব বৃদ্ধি বিশ্বব্যাপী শান্তি ও নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতির সরাসরি প্রতিক্রিয়া।"