ডিজিটাল বাস্তবতার জগতে সরাসরি সঙ্গীত শোনার অভিজ্ঞতা আরও বাস্তব হয়ে উঠছে

মিক্সড রিয়েলিটি বা মিশ্র বাস্তবতার হেডসেট এবং অন্যান্য প্রযুক্তির অগ্রগতি লাইভ মিউজিক বা সরাসরি সঙ্গীত শোনার অভিজ্ঞতায় নতুন মাত্রা আনতে বাস্তব ও ডিজিটাল জগতের সমন্বয় ঘটাচ্ছে।

ক্যানন জানাচ্ছে যে এটি একটি মিশ্র বাস্তবতার হেডসেট তৈরি করেছে যা সংগীত পরিবেশনার উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে।

কোম্পানিটি জানাচ্ছে যে প্রযুক্তিটি সরাসরি সঙ্গীতানুষ্ঠানের ভেন্যুতে ৫০টির মতো ক্যামেরা ব্যবহার করে বিভিন্ন দৃশ্যগত এবং শব্দগত ইফেক্ট সংগ্রহ করার পর তা তাদের হেডসেটে পুনরুৎপাদন করে।

ক্যানন এও জানাচ্ছে যে পণ্যটি বর্তমানে প্রচলিত প্রযুক্তির তুলনায় আরও বাস্তবসম্মত ও বিস্তারিতভাবে সরাসরি শোনার অভিজ্ঞতা প্রদান করবে।

ক্যাননের কর্মকর্তা মুরাকি জুনইয়া বলেন, "এই প্রযুক্তি একজন ব্যবহারকারীকে সঙ্গীতের এমন অভিজ্ঞতা অর্জন করতে দেয় যা সাধারণত শুধুমাত্র একটি কনসার্ট হলেই পাওয়া যায়। আমরা মনে করি প্রযুক্তিটি শিক্ষা এবং বিনোদনের ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা যাবে।"

এ সংশ্লিষ্ট এক উন্নয়নে, টোকিওর তোরানোমোন হিলস কমপ্লেক্সে একটি ৩০০ আসনের অর্কেস্ট্রা ইভেন্ট হল রয়েছে, তবে এটি তথাকথিত ডিজিটাল টুইন প্রযুক্তি ব্যবহার করে নির্মাণ করা হয়।

এটি মেটাভার্সের মতো পরিবেশে অনলাইনে ১০ হাজার ব্যক্তিকে লাইভ বা সরাসরি পরিবেশনা দেখার সুযোগ দেয়।
ডিজিটাল দর্শকরা এমনকি পরিবেশনার জন্য তাদের আসনও বেছে নিতে পারেন।

টেলিকম সংস্থা কেডিডিআই এবং মোরি বিল্ডিং কোম্পানি যৌথভাবে হলটি পরিচালনা করে, যা মার্চ মাসে উদ্বোধন করা হয়।