রাফাহকে লক্ষ্য করে আক্রমণ

গাজার সর্ব দক্ষিণের শহর রাফাহতে ইসরায়েলি বাহিনী বোমাবর্ষণ করেছে। তাদের ভাষ্যমতে, তারা হামাসের হাতে জিম্মি হওয়া দুই ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে।

কাতার ভিত্তিক সম্প্রচার সংস্থা আল জাজিরা এবং অন্যান্য সংবাদ মাধ্যমগুলো সোমবার ভোরে ইসরায়েলি বাহিনীর ব্যাপক বিমান হামলা এবং বোমাবর্ষণের খবর দিয়েছে। গাজার স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানায়, ইসরায়েলের এই বিমান হামলায় ৬৭ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

সোমবার রাফাহতে এনএইচকে'র ধারণকৃত ভিডিও চিত্রে লোকজনকে শহর ছেড়ে গাজা উপত্যকার কেন্দ্রীয় অংশে আশ্রয় খুঁজতে পালিয়ে যেতে দেখা যায়। গাড়ি ও গাধার পিঠে তাঁবু ও গৃহস্থালির মালামাল বোঝাই করছিলেন তারা।

এক ব্যক্তি বলেন, "রাফাহর উপর বেশ কয়েকটি নির্বিচার হামলা হয়েছে, তাই আমাদের আবার পালিয়ে যাওয়া ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।"

এদিকে, দুই জিম্মিকে উদ্ধারের পর ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলেন, "সম্পূর্ণ বিজয় না হওয়া পর্যন্ত একমাত্র অব্যাহত সামরিক চাপই আমাদের সকল জিম্মিকে মুক্ত করবে।"

নেতানিয়াহু রাফাহতে স্থল হামলা চালাতে বদ্ধপরিকর। তিনি বেসামরিক নাগরিকদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করার পাশাপাশি হামাসকে ধ্বংস করার পরিকল্পনা তৈরি করতে সামরিক বাহিনীকে নির্দেশ দেন।

তবে, পরিকল্পনাটি সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করে ইসরায়েল এবং হামাসের মধ্যে জিম্মি মুক্তির আলোচনায় মধ্যস্থতাকারী দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও মিশর। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও আরও বেশি বেসামরিক হতাহতের সম্ভাবনা সম্পর্কে উদ্বিগ্ন রয়েছে।