গাজা সংঘাতে ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রের নিন্দা জানিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসি

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি গাজা ভূখণ্ডের সংঘাত নিয়ে ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রের কঠোর সমালোচনা পুনর্ব্যক্ত করেছেন।

ইসলামি বিপ্লবের ৪৫তম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে রবিবার রাজধানী তেহরানে রাইসি এক ভাষণ দেন।

রাইসি বলেন, মানুষ যদি ইসরাইল ও যুক্তরাষ্ট্রকে জানতে চায়, তাহলে তাদের ফিলিস্তিনি জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ প্রত্যক্ষ করা উচিত। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এখন এইসব অপরাধের প্রবক্তা।

রাইসি আরও বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো ইরানকে ফিলিস্তিনিদের সমর্থন করা থেকে বিরত রাখতে অনেক কিছু করেছে, কিন্তু ফিলিস্তিন বিষয়টি ইসলামী জগতের প্রথম অগ্রাধিকার।

ইরান ইসলামিক গোষ্ঠী হামাস ও অন্যান্য জঙ্গিদের সমর্থন দিয়ে আসছে।

ইসলামী বিপ্লবের ৪৫তম বার্ষিকী উদযাপনের জন্য নাগরিকরা বিভিন্ন চত্বরে সমবেত হন এবং ইরান জুড়ে রাস্তায় নেমে পড়েন। উল্লেখ্য, তাদের মধ্যে কয়েকজন ফিলিস্তিনি পতাকা ধরে ছিলেন।

১৯৭৯ সালের বিপ্লবের ফলে মার্কিন-পন্থী পাহলভি রাজবংশের পতন ঘটে এবং বর্তমান ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের উদ্ভব ঘটে, যেখানে ইসলামী আইনে বিশেষ জ্ঞান থাকা ব্যক্তিদের দ্বারা দেশটি পরিচালিত হয়।

এরপর থেকে ইরান কট্টর মার্কিন বিরোধী নীতি গ্রহণ করে। দেশটি ইসরাইলকেও শত্রু হিসেবে গ্রহণ করে কারণ ইসরাইল জেরুজালেম দখল করে চলেছে, যেখানে ইসলামের একটি প্রধান পবিত্র স্থান রয়েছে।