স্বপক্ষ ত্যাগকারী অধিকাংশ উত্তর কোরীয়র বংশগত নেতৃত্ব অপছন্দ বলে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া

দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার বলেছে যে সাম্প্রতিক বছরগুলিতে স্বপক্ষ ত্যাগকারী উত্তর কোরিয়ার লোকজনের অর্ধেকের বেশি তাদের দেশের বংশগত ক্ষমতার উত্তরাধিকার নিয়ে নেতিবাচক মতামত প্রকাশ করেছেন।

একীভূতকরণ মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার ২০২০ সালে পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া থেকে পালিয়ে আসা ৬,৩৫১ জনের উপর চালানো জরিপের ফলাফল প্রকাশ করেছে। সেই জরিপে উত্তর কোরিয়ার রাজনৈতিক, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে তাদের প্রশ্ন করা হয়েছিল।

জরিপের ফলাফলে দেখা গেছে যে ২০২০ সাল পর্যন্ত পাঁচ বছর সময়ের মধ্যে উত্তর কোরিয়া ত্যাগ করা লোকজনের মধ্যে ৫৪ দশমিক ৯ শতাংশ তাদের সাবেক সেই দেশের বংশগত নেতৃত্ব ব্যবস্থা সম্পর্কে নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করেন।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয় যে ২০১১ সালে পিতার মৃত্যুর পর উত্তরাধিকার সূত্রে কিম জং উন ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে এই ধরনের সমালোচনামূলক মতামত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

জরিপে দেখা গেছে যে ২০১৬ বা তার পরে উত্তর কোরিয়া থেকে পালিয়ে আসা লোকজনের মধ্যে ৮৩ দশমিক ৩ শতাংশ বলেছেন যে তারা চীন এবং দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযোজিত নাটক ও অন্যান্য ভিডিও দেখেছেন। সংবাদ মাধ্যমের উপর পিয়ংইয়ং এর কঠোর নিয়ন্ত্রণ থাকা সত্ত্বেও দেশের বাইরে কী চলছে সে বিষয়ে অনেকেরই ব্যাপক আগ্রহ থাকার ইঙ্গিত এর থেকে পাওয়া যাচ্ছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে যে উত্তর কোরিয়ায় খাদ্য সরবরাহ ব্যবস্থা কার্যত ভেঙে পড়ার কারণে ব্যক্তিগত বাজার কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে আরও উল্লেখ করা হয় যে দেশত্যাগকারীদের কেউ কেউ ব্যক্তিগতভাবে বাড়ি কেনা বা বিক্রি করার কথা জানিয়েছেন, যা উত্তর কোরিয়ায় নিষিদ্ধ।