জাপানের বিভিন্ন কোম্পানি ২০২৩ সালে রেকর্ড পরিমাণ ব্যক্তিগত উপাত্ত ফাঁসের ঘটনা লক্ষ্য করেছে

জাপানের কোম্পানিগুলিতে উপাত্ত ফাঁস এবং ব্যক্তিগত তথ্য হারানোর সংখ্যা ২০২৩ সালে রেকর্ড পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে বলে এক জরিপে দেখে গেছে।

টোকিও শোকো রিসার্চ বলেছে যে গত বছর শেয়ার বাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান এবং তাদের অধীনস্থ সংস্থাগুলি এই ধরনের ১৭৫টি ঘটনার কথা জানায়। এই সংখ্যা হল আগের বছরের তুলনায় ১০টি বেশি এবং ২০১২ সালে জরিপ শুরু হওয়ার পর থেকে সর্বোচ্চ৷

সবচেয়ে সাধারণ কারণ ছিল কম্পিউটার ভাইরাস এবং অবৈধভাবে ওয়েবসাইটে প্রবেশ, মিলিতভাবে যা ৯৩টি ঘটনার জন্য দায়ী।

তথ্য ফাঁস হয়ে যাওয়ার ফলে গত বছর প্রায় ৪১ মিলিয়ন মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য প্রভাবিত হয়। ২০২২ সালের তুলনায় এটি প্রায় সাতগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং একই সাথে এটি হল রেকর্ড সর্বোচ্চ।

গত বছর অক্টোবরে টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান এনটিটি ওয়েস্টের অধীনস্থ একটি কোম্পানির একজন প্রাক্তন অস্থায়ী কর্মী প্রায় দশ বছর সময়ের মধ্যে ৯ মিলিয়নের কাছাকাছি মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করেছেন বলে প্রকাশিত হয়েছিল।

গবেষণা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা বলছেন, মানবিক ত্রুটি এবং দুর্বল তথ্য ব্যবস্থাপনার কারণে অনেক ঘটনা ঘটেছে। কর্মকর্তারা বলেন, অনুরূপ ঘটনা প্রতিরোধ করতে হলে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোকে উপাত্ত নিরাপত্তা জোরদার এবং ব্যবসায়িক শাসন উন্নত করতে হবে।