যৌথ হেফাজতের পরিকল্পনা জমা দেবে জাপানের বিচার মন্ত্রণালয়

জাপানের বিচার মন্ত্রণালয়ের একটি প্যানেল বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যাওয়া বাবা-মাকে তাদের সন্তানদের তত্ত্বাবধান ভাগ করে নেওয়ার অনুমতি দেওয়ার জন্য এক গুচ্ছ প্রস্তাবের রূপরেখা তুলে ধরেছে। মন্ত্রণালয় সংসদের বর্তমান অধিবেশনে দেওয়ানী মামলা ও অন্যান্য আইনের সংশোধনী জমা দিতে আগ্রহী।

আইন সভার পারিবারিক আইন উপ-কমিটির একত্রিত করা খসড়া রূপরেখায় বর্তমান ব্যবস্থা সংশোধন করার লক্ষ্য ধরে নেয়া হয়েছে, যা কেবল বাবা বা মার অভিভাবকের অধিকারকে স্বীকৃতি দিয়ে থাকে।

এতে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে যে যৌথ বা একক হেফাজতের জন্য আবেদন করা হবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত নেবেন বাবা মা। তবে তারা যদি সম্মত হতে ব্যর্থ হন সেক্ষেত্রে একটি পারিবারিক আদালত সেই সিদ্ধান্ত নেবে। প্রস্তাবে বলা হয় আদালত-স্বীকৃত গার্হস্থ্য সহিংসতা বা শিশু নির্যাতনের ক্ষেত্রে কেবল একজনকে হেফাজতের দায়িত্ব দেওয়া হবে।

প্যানেল একটি সমাধান যোগ করেছে, শিশুরা যাতে সুবিধাবঞ্চিত না হয় তা নিশ্চিত করার জন্য সরকার এবং কল্যাণ কর্তৃপক্ষকে পর্যাপ্ত সহায়তা দেওয়ার আহ্বান যেখানে জানানো হয়।

কীভাবে এই ব্যবস্থা প্রয়োগ করা হবে, সহায়তা প্রদান করা হবে এবং পারিবারিক আদালতের বৃহত্তর ভূমিকা পরিচালনা করা হবে সে সম্পর্কে বিস্তারিত সিদ্ধান্ত এখনও নেওয়া হয়নি।

রূপরেখা চূড়ান্ত করতে এবং বিচার মন্ত্রী কোইযুমি রিউজিকে অবহিত করতে দ্রুত হলে আগামী মাসের প্রথম দিকে আইন পরিষদ এক বৈঠকে মিলিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। মন্ত্রণালয়ের লক্ষ্য হল সংসদের বর্তমান অধিবেশনে সংশোধনগুলি কার্যকর করা।