সংসদীয় বক্তৃতায় রাজনৈতিক সংস্কার, ভূমিকম্প বিধ্বস্ত এলাকার পুনর্গঠনের অঙ্গীকার জাপানের প্রধানমন্ত্রীর

জাপানের প্রধানমন্ত্রী কিশিদা ফুমিও তার সংসদীয় নীতি বিষয়ক বক্তৃতায় রাজনীতিতে জনগণের আস্থা পুনরুদ্ধারের জন্য তার সংকল্পের কথা জানিয়েছেন। প্রধান ক্ষমতাসীন দল লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির উপদল সংশ্লিষ্ট একটি তহবিল সংগ্রহ কেলেঙ্কারির ঘটনা বেরিয়ে আসতে থাকার মাঝে এই সংকল্পের ঘোষণা এলো।।

মঙ্গলবার কিশিদা তার বক্তৃতা শুরু করেন নববর্ষের দিনে ইশিকাওয়া জেলার নোতো অঞ্চলে আঘাত হানা শক্তিশালী ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে।

কিশিদা বলেন, ২০২৪ অর্থবছরের বাজেটে সংরক্ষিত তহবিল দ্বিগুণ করে ১ ট্রিলিয়ন ইয়েন বা প্রায় ৬.৮ বিলিয়ন ডলার করা হয়েছে। তিনি এও বলেন যে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলগুলো পুনর্গঠনের জন্য একটি টাস্কফোর্সের নেতৃত্ব দেবেন এবং যথাসাধ্য করবেন। তিনি বলেন, এলাকাগুলো স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে না আসা পর্যন্ত সরকার দায়িত্ব গ্রহণ করবে।

তহবিল সংগ্রহ কেলেঙ্কারি সম্পর্কে, কিশিদা বলেন যে এটি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং তিনি আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী। তিনি ইঙ্গিত দেন যে অন্যান্য দল এবং সংসদীয় গ্রুপগুলোর সাথে আলোচনা করার পর তিনি রাজনৈতিক তহবিল নিয়ন্ত্রণ আইনের সংশোধন'সহ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানাবেন।

প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করেন যে এলডিপি'র উপদলগুলো আর্থিক বিষয়ে জড়িত এবং মন্ত্রিসভা ও দলের গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে নিয়োজিত দল হিসেবে বিবেচিত হয়। তিনি বলেন, তিনি আন্তরিকভাবে অনুতপ্ত এবং অর্থ ও কর্মী সংক্রান্ত বিষয়গুলো থেকে নীতি গ্রুপগুলোকে সম্পূর্ণ আলাদা করার সিদ্ধান্ত তিনি নিয়েছেন।

কূটনৈতিক এবং নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে কিশিদা বলেন, এপ্রিলের শুরুতে ওয়াশিংটনে তার পরিকল্পিত সরকারি সফরের মতো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সাথে জাপানের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক প্রসারিত ও গভীর করার পরিকল্পনা করছেন।

তিনি আরও বলেন, জাপান রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জোরদার করবে এবং ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখবে। তিনি উল্লেখ করেন যে ফেব্রুয়ারি মাসে টোকিওতে অর্থনৈতিক পুনর্গঠনের প্রচারের জন্য জাপান-ইউক্রেন সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।